ফেসবুকে কেন হাহা দেওয়া হয়

সাক্ষাৎকার নিয়েছে জেসমিন আরা ফেরদৌস

তরুণ প্রজন্মের কাছে ফেসবুক একটি বহুল ব্যবহৃত সামাজিক গণমাধ্যম। ফেসবুকে অনুভূতি প্রকাশের একটি অপশন হাহা রিয়্যাক্ট এ নিয়ে আমাদের তরুণ সমাজে কার কি মতামত তা জানতে আমরা চলে গেছিলাম রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে। সেখানে আমরা জুবেরী মাঠ থেকে প্যারিস রোড পর্যন্ত কয়েকজন তরুণ তরুণীকে হাহা রিয়্যাক্ট সম্পর্কে তাদের প্রতিক্রিয়া কি জিজ্ঞেস করে তাদের নানান মতামত পায়।

প্রশ্ন: আপনি কি ফেসবুক ব্যবহার করেন?
নাফিসা: জ্বী
প্রশ্ন: আপনি কি ফেসবুকে হাহা রিয়্যাক্ট দেন?
নাফিসা: হ্যাঁ, দেই মাঝে মধ্যে।
প্রশ্ন: হাহা রিয়্যাক্ট দিতে কেমন লাগে?
নাফিসা: ভালই লাগে, যদি হাসির হয় তাহলে তো হাহা দেই।
প্রশ্ন: কারো সিরিয়াস পোস্টে কি কখনো হাহা দিয়েছেন?
নাফিসা: এরকম করিনা। ব্লক খাওয়ার ভয়ে।
প্রশ্ন: আপনার সিরিয়াস পোস্টে যখন কেউ হাহা রিয়্যাক্ট দেয় তখন আপনার কেমন লাগে?
নাফিসা: কিছুই মনে হয় না, কারন রিয়্যাক্ট দেয় বেস্ট ফ্রেন্ডরা।

প্রশ্ন: আপনি ফেকবুক ব্যবহার করেন?
নাহিদ: জ্বী
প্রশ্ন: আপনার কোন ইমোশনাল পোস্টে যখন কেউ হাহা রিয়্যাক্ট দেয় তখন কেমন লাগে?
নাহিদ: অনেক খারাপ লাগে, আমার দুঃখের সময় কেউ হাহা রিয়্যাক্ট দিচ্ছে।
প্রশ্ন: আপনি যখন কারো পোস্টে হাহা রিয়্যাক্ট দেন তখন কি মনে করে দেন?
নাহিদ: না, আমি কখনো দেইনা।

প্রশ্ন: ফেসবুক তো ব্যবহার করা হয়?
রিয়া: জ্বী করি।
প্রশ্ন: আপনি কি কখনো কারো পোস্টে হাহা রিয়্যাক্ট দেন?
রিয়া: ফানি বিষয় হলে দেই।
প্রশ্ন: আপনাকে কি কেউ কখনো হা হা রিয়্যাক্ট দিয়েছে?
রিয়া: না কেউ দেই না।

প্রশ্ন: ফেসবুক তো ব্যবহার করা হয়?
ওমর: জ্বী করি।
প্রশ্ন: আপনি কারো পোস্টে কি হাহা রিয়্যাক্ট দেন?
ওমর: হাহা রিয়্যাক্ট আমি তার পোস্টের উপর নির্ভর করে দেই।
প্রশ্ন: আপনার পোস্টে যখন কেউ হাহা রিয়্যাক্ট দেয় তখন কি মনে হয়?
ওমর: অবশ্যই হাহা দেওয়ার মত পোস্ট হলে হাহা দিবে কিন্তু যদি আমি আমার মনের অবস্থা প্রকাশ করে রিয়্যাক্ট দেয়
যেমন: যদি আমি পোস্ট করি আমার বাবা মারা গেছে, সেখানে কেউ হাহা রিয়্যাক্ট দিলে বুঝে নিতে হবে তার মানসিকতা কেমন।

ফেসবুকে রিয়্যাক্ট মানুষের ভাল লাগা মন্দ লাগার অনুভুতি প্রকাশের জন্য এমনটাই মনে করেন ফেসবুক ব্যবহারকারী তরুণরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *